ম্যাম’জেল এক্স – সুমিত গঙ্গোপাধ্যায়

শেয়ার করুন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের অধিকৃত ফ্রান্স। নাৎসি বাহিনী একটা বড় অংশ দখল করেছে। দেশ ভক্ত ফরাসি গেরিলা বাহিনীও লড়ছে, ফ্রান্স জুড়ে চলছে সংগ্রাম। এমনই এক অবস্থার প্রেক্ষাপট কে ভিত্তি করে ষাটের দশকে জুন নামে লন্ডন থেকে প্রকাশিত একটি কিশোরীদের পত্রিকায় ‘ ক্যাট গার্ল ‘ কমিকসের শিল্পী জর্জিও জিওরজেত্তি শুরু করেন কমিকস ‘ ম্যাম’জেল এক্স’। সেই সময়ে ইংল্যান্ডে প্রবল ভাবে জনপ্রিয় হয় এই চরিত্রটি। ১৯৬৫-১৯৭৪ অবধি জুন পত্রিকায়, পরে স্কুল ফ্রেন্ড ও ট্যামি নামে অন্য পত্রিকাতেও প্রকাশিত হয়।

ষাটের দশক ব্রিটিশ গার্লস কমিকসের স্বর্ণযুগ। অজস্র কমিকস প্রকাশিত হয়েছে মেয়েদের কেন্দ্রীয় চরিত্র করে। কোনও কোনও কমিকস এ পুরুষ চরিত্র সম্পূর্ন বিবর্জিত। এই সময়ে অজস্র পত্রিকা প্রকাশিত হয়েছে। জুন, জুডি, জিন্টি, স্যালি, ট্যামি, গার্ল, স্কুল ফ্রেন্ড, লিন্ডি, মার্টি, সুজি, প্রিন্সেস, ডায়ানা প্রভৃতি আরও অজস্র পত্রিকা সেই যুগে প্রকাশিত হতো। এই পত্রিকা গুলো আশির দশকেই অধিকাংশ বন্ধ হয়ে যায় বা জনপ্রিয়তা হারায়।

ম্যাম’জেল এক্স অবশ্য শুধু ইংল্যান্ডেই নয়। ফ্রান্সে এবং পর্তুগালেও প্রকাশিত হয়েছিল।

কে এই ম্যাম’জেল এক্স জানতে গেলে আমাদের একবার ফিরে দেখতে এর বাস্তব প্রেক্ষাপট কে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন জার্মান সেনার ব্লিৎসক্রিগের পর ১৯৪০ সালের মে মাস থেকেই প্রকৃত অর্থে ফরাসী তৃতীয় প্রজাতন্ত্রের পতন ঘটে। নাম কা ওয়াস্তে একটা ফরাসি সরকার যদিও চালানো হয়েছিল মার্শাল ফিলিপ পেতাঁর অধীনে কিন্তু আসল ক্ষমতা ছিল নাৎসিদের হাতে। ১৯৪৪ সালের জুন মাসে মিত্র শক্তি, স্বাধীন ফরাসি সেনা ও ফরাসি প্রতিরোধ বাহিনী যৌথ ভাবে নাৎসীদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লে ১৯৪৫ এর মে মাসে পেতাঁর সরকার পালিয়ে যায়, শার্ল দ্য গলের নেতৃত্বে অস্থায়ী সরকার তৈরী হয় এবং নাৎসী শাসনের অবসান ঘটে।

তৃতীয় প্রজাতন্ত্রের পতনের পরে ফিলিপ পেতাঁর নিরস্ত্রীকরণ চুক্তিতে সই মানতে চাননি গল। তিনি একটি এক্সাইল গভর্নমেন্ট তৈরি করেন, যাকে ফরাসি মুক্তি বাহিনী বা স্বাধীন ফরাসি বাহিনী বলা হতো। যদিও ভারত ও আফ্রিকার উপনিবেশ ফিলিপ পেতাঁ কেই সমর্থন করে। অবশ্য অক্ষ শক্তি ক্রমশ সাফল্য পাওয়ার ফলে ১৯৪২ সালের পর থেকে ফিলিপ পেতাঁর সরকারের থেকে ক্ষমতা বেড়ে যায় গলের বাহিনীর, যাঁরা ফিলিপ পেতাঁর বাহিনী ও অক্ষ শক্তি উভয়ের বিরুদ্ধেই লড়ছিল। এরা ব্রিটিশ বাহিনী, সোভিয়েত বাহিনী সর্বত্র কাজ করতো, অবশেষে ১৯৪২ সালের পরে এরা বেশ কিছু স্থানে এরা ফ্রান্সের প্রতিনিধি হয়ে ওঠে।

দেশের ভেতরে এই লড়াই করছিল ফরাসি প্রতিরোধ বাহিনী বা ফ্রেঞ্চ রেজিস্ট্যান্স। গেরিলা যুদ্ধ, আন্ডার গ্রাউন্ড খবরের কাগজ, গোপন খবরাখবর নেওয়া, স্বাধীন ফরাসি বাহিনী ও মিত্র শক্তি কে অক্ষ শক্তির খবর দেওয়া সব কাজ করতো। এঁদের মধ্যে পুরুষ ও মহিলা সবাই ছিল। উদ্বাস্তু, অ্যাকাডেমিক্স, ছাত্র, রাজনীতিবিদ, অভিজাত, শ্রমিক, কৃষক, রোমান ক্যাথলিক ( যাজক ও সন্ন্যাসিনী সহ), প্রোটেস্ট্যান্ট, ইহুদী, মুসলিম, উদারবাদী, নৈরাজ্যবাদী, সব ঘরানার কমিউনিস্ট, সোশ্যালিস্ট, সবাই ছিল।

ম্যাম’জেল এক্স এমনই কোনও গোষ্ঠীর সদস্যা যিনি সবথেকে মারাত্মক সিক্রেট এজেন্ট হিসেবে বিখ্যাত ছিলেন। প্রকাশ্যে তিনি অ্যাভ্রিল ক্ল্যারি নামে পরিচিত বিখ্যাত এক অপেরা গায়িকা, নাৎসিদের নয়নমনি কিন্তু আসলে তিনি সেই ম্যাম’জেল এক্স যাঁকে পাগলের মতো খুঁজে বেড়াচ্ছে নাৎসিরা। কিন্তু বিভিন্ন স্থানে তিনি নাৎসিদের সংগঠন পন্ড করা, ভেঙে পড়া প্লেনের পাইলট কে উদ্ধার করে জরুরী কাগজপত্র পাচার, অস্ত্র বানানোর গোপন কারখানা খুঁজে বের করে সব যন্ত্রপাতি পাঠিয়ে দেওয়া গেরিলাদের হাতে, এমনই একের পর এক দু:সাহসি কাজ করে যান। সঙ্গে থাকেন তাঁর পরিচারিকা কাম সর্বক্ষণের সঙ্গী নিনটি।

জুন পত্রিকায় প্রকাশিত ম্যাম’জেল কমিকস গুলো হলো

Mam’selle X (September 1966)
Perilous Escape! (November 1966)
Desert of Mystery (January 1967)
Mam’selle X in the Alps (March 1967)
Mam’selle X and the Mystery Parachutist (June 1967)
Operation Danger (August 1967)
The Elusive Mam’selle X (October 1967)
Mam’selle X Joins the Gypsies (December 1967)
Mam’selle X Tames a Tyrant! (February 1968)
Mam’selle X and the Urchin Gang (April 1968)
The Courage of Mam’selle X (June 1968) The Girl Who Knew No Fear! (August 1968)
Mam’selle X – Schoolgirl Spy (September 1968) (১)

Shirley নামক একটি ফরাসি পত্রিকায় MAM’SELLE X-2 SECRET AGENT নামে প্রকাশিত হতো যেখানে অ্যাভ্রিল ক্ল্যারির নাম ছিল ক্যারোলিন ভিনসেন্ট (ক্যারোলাঁ ভয়সাঁ) এবং নিনটির নাম ছিল অ্যানি(১)।

এছাড়াও o falcão পত্রিকা নাম গুলো আলাদা করে ১৯৬৮-১৯৭০ ও ১৯৮০-১৯৮৩ অবধি প্রকাশিত করে(২)।

১৯৯০ সালে বাংলায় ‘ শুকতারা ‘ পত্রিকায় শুরু হয়েছিল এই কমিকসের বাংলা অনুবাদ। চলেছিল ১৯৯৫ অবধি। আমার হিসেব অনুযায়ী – এর তালিকা

(১)আল্পসের তুষার রাজ্যে ম্যাম’জেল এক্স – কার্তিক ১৯৩৭ থেকে পৌষ, ১৩৯৮ (১৪ সংখ্যা)।

(২) ছদ্মবেশে ম্যাম’ জেল এক্স – ১৩৯৮ মাঘ থেকে ১৩৯৯ চৈত্র (১৪ সংখ্যা)।

(৩) ভয়ঙ্করের মোকাবিলায় ম্যাম’জেল এক্স – ১৪০০ বৈশাখ- ১৪০১ আশার (১৪ সংখ্যা)

(৪) জিপসীদের দলে ম্যাম’ জেল এক্স – ১৪০১ শ্রাবণ – ১৪০২ কার্তিক (১৪ সংখ্যা)।

ম্যাম’জেল এক্স প্রায় বিস্মৃত কমিকস। আজকে যখন ফ্যাসিবাদ দুনিয়া জুড়ে পুনরায় তাঁর থাবা বসাতে চাইছে, তখন এই কমিকসের আরও চর্চা হওয়া দরকার নারীবাদী দৃষ্টিভঙ্গি দ্বারা।

১.https://comicsuk.co.uk/forum/viewtopic.php?t=7805

২.http://www.pimpf.org/mjm/articles/shirley/shirley.htm

৩.http://nerdenthal.blogspot.com/2012/01/o-falcao-no-feminino-36.html?m=1

শেয়ার করুন

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.