/ / ডেরেক ওয়ালকট-এর তিনটি কবিতা অনুবাদ: অভিনন্দন মুখোপাধ্যায়
|

ডেরেক ওয়ালকট-এর তিনটি কবিতা অনুবাদ: অভিনন্দন মুখোপাধ্যায়

শেয়ার করুন

[লেখক পরিচিতি: স্যার ডেরেক এলটন ওয়ালকট ১৯৩০ সালের ২৩শে জানুয়ারিতে সেন্ট লুসিয়ার ক্যাস্ট্রিজ-এ জন্মগ্রহণ করেন। মূলত কবি এবং নাট্যকার হিসেবে পরিচিত ডেরেক ওয়ালকট ১৯৯২ সালে নোবেল পুরস্কার পান। তাঁর কবিতায় ঔপনিবেশিক শাসনের ভারে ভারাক্রান্ত মানুষের জীবন, ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের মানুষজনের খণ্ড-বিখণ্ড আত্মপরিচিতি বার বার উঠে আসে। ২০১৭ সালের ১৭ই মার্চ তাঁর মৃত্যু হয়।]

মুষ্টি

একটি মুষ্টি খুব দৃঢ় ভাবে আমার হৃদয় আঁকড়ে ধরলো
তারপর অল্প আলগা হতেই, আমি শ্বাস নিলাম
উজ্জ্বল ভাবে; কিন্তু সেই মুষ্টি পুনরায়
দৃঢ় হয়ে গেল। ভালবাসার কষ্ট
আমি কি ভালবাসিনি? কিন্তু তা চলে গেল

ক্ষিপ্ততার প্রতি আমার পুরানো প্রেম। একজন উন্মাদের
শুধু এই তীব্র ভাবে জড়িয়ে ধরাটুকুই আছে।
অতল গহ্বরে ডুবে যাওয়ার আগে
অযৌক্তিক বিষয়ের প্রান্তটুকু আঁকড়ে ধরা আছে।

হৃদয়কে ধরে রাখো শক্ত করে।
অন্তত এইভাবে বাঁচো।


নতুন বিশ্বের মানচিত্র

আমি দ্বীপপুঞ্জ

এই বাক্যটি শেষ হলে বৃষ্টি শুরু হবে।
বৃষ্টির কিনারায়, একটি নৌকার পাল।

ধীরে ধীরে সেই পাল দ্বীপের দৃষ্টি থেকে দূরে চলে যাবে;
কুয়াশার ভেতর সমগ্র জাতির বন্দরে এসে
মিশবে বিশ্বাস।

দশ বছরের যুদ্ধ শেষ হয়ে গেছে।
হেলেনের চুল, মেঘের মতো ধূসর।
ফোঁটা ফোঁটা সমুদ্রকণায়
ট্রয়, সাদা ছাইয়ের গহ্বর।

ফোঁটাগুলো বীণার তারের মতো শক্ত হয়ে যায়।
মেঘলা চোখের একজন মানুষ বৃষ্টির কণা সংগ্রহ করে
এবং ওডিশির প্রথম পংক্তিটিকে ছিঁড়ে নেয়।


গ্রীষ্মকালের ব্লিকার স্ট্রিট

গ্রীষ্মকাল গদ্য এবং লেবুর জন্য, নগ্নতা এবং ক্লান্তির জন্য,
কাল্পনিক প্রত্যাবর্তনের আশায় চিরকালীন অলসতার জন্য,
উৎকৃষ্ট বাঁশির সুর এবং খালি পায়ের জন্য, এবং অগাস্টের শয়নকক্ষে
জড়ানো চাদর ও রবিবারের নুনের জন্য, আহা বেহালাখানি!

যখন আমি গ্রীষ্মের সন্ধ্যাগুলো একসাথে চেপে ধরি, সেটি হয়ে ওঠে
রাস্তার অ্যাকোয়ার্ডিয়ান বাদকের মাস, এবং জল সেচনের পাত্র
ধুলোয় পড়ে থাকে, ছোট ছোট ছায়াগুলি আমার থেকে দূরে চলে যায়

ব্লিকার স্ট্রিটে ‘আমার ইতালি’ নামক গানের সুর খুলছে এবং বন্ধ হচ্ছে
বিদায় আন্তোনিও, এবং কাগজের স্রোতে
গোলাপি রঙের আকাশ ছিঁড়ে শিশুদের জলের মতো কান্না ঝরে পড়ছে;
নাসারন্ধ্রের ভেতর সন্ধে নেমে আসে, নোংরা রাস্তায়
জলের গন্ধ তোমাকে জলের দিকেই টেনে নিয়ে যায়,
মস্তিষ্কে জড়ো হয় দ্বীপ এবং লেবুর পসরা।

সামুদ্রিক আগুনের মতো জেগে আছে হাডসন নদী।
গ্রীষ্মের তীব্র উষ্ণতায় আমি তোমাকে নগ্ন করে দেবো,
এবং হেসে ফেলবো, তোমার ভেজা মাংসপিন্ডও শুকিয়ে দেবো যদি তুমি আসো।

শেয়ার করুন

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *